এ চেয়ারে বসার পর থেকে আমি কোনো নির্দিষ্ট দলের নই: মাহবুব তালুকদার

বার্তাজগৎ২৪ ডেস্ক:

প্রকাশিতঃ ২৬ জানুয়ারী ২০২০ সময়ঃ দুপুর ২ঃ৫০
এ চেয়ারে বসার পর থেকে আমি কোনো নির্দিষ্ট দলের নই: মাহবুব তালুকদার
এ চেয়ারে বসার পর থেকে আমি কোনো নির্দিষ্ট দলের নই: মাহবুব তালুকদার

বার্তাজগৎ২৪ ডেস্কঃ

যে মুহূর্ত থেকে আমি এই চেয়ারে বসেছি সেই মুহূর্ত থেকে আমি কোনো দলের নই। আমি আমার বিবেক দ্বারা পরিচালিত বলে মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশনের জ্যেষ্ঠ কমিশনার মাহবুব তালুকদার।

রোববার (২৬ জানুয়ারি) রাজধানীর শের-ই বাংলা নগরে নির্বাচন ভবনে নিজ দফতরে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ মন্তব্য করেন।

সরকারি দল সবসময় একটা কথা বলে আপনি বিএনপির পারপাস সার্ভ করার জন্য বসেছেন, আপনার পদত্যাগ করা উচিত। সাংবাদিকদের এই প্রশ্নের জবাবে মাহবুব তালুকদার বলেন, ‘যে কেউ যেকোনো কিছু বলতে পারে, যেকোনো তকমা আমার পেছনে লাগানো যেতে পারে, কিন্তু আমার অতীত ইতিহাস যারা জানেন তারা কখনো বলবেন না যে আমি কোনো নির্দিষ্ট দলের। যে মুহুর্ত থেকে আমি এই চেয়ারে বসেছি সেই মুহূর্ত থেকে আমি কোনো দলের নই। কোনো দলের সঙ্গে আমার কোনো সম্পর্ক নেই। কারেও সঙ্গে কোনো মতবাদের সঙ্গে আমার সম্পর্ক নেই। আমি আমার বিবেক দ্বারা পরিচালিত। এটা তাদের রাজনৈতিক বিষয় হতে পারে। কিন্তু আমি সেগুলো অতিক্রম করে যেতে চাই।

তিনি আরও বলেন, ‘আমি আচরণবিধি সম্পর্কে যে চারটি নোট দিয়েছিলাম সেগুলো উপেক্ষিত হয়েছে। কিন্তু এ সম্পর্কে আমার করণীয় সেটা সময়ই বলে দেবে, এ মুহূর্তে কিছু বলতে পারব না। নির্বাচন যখন হবে তখন দেখবেন আইনশৃঙ্খলা আমাদের নিয়ন্ত্রণে আছে কিনা। তবে রাজনৈতিক বিষয়ে মন্তব্য দেওয়া আমার পক্ষে সম্ভব না।’

প্রচার-প্রচারণায় আচরণবিধি লঙ্ঘন হচ্ছে, আপনারা চুপ কেন এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘আমি তো চুপ না। আমি স্পষ্টভাবে আচরণবিধি সম্পর্কে আমার অভিমত আমি বলেছি। সুতরাং এই প্রশ্নের আলাদা জবাব হয় না। আমার চোখের সামনে কেবল ঢাকাবাসী নয়, আমি এ দেশের নীরব জনগোষ্ঠির ভাষা যেটা অশ্রুত, সেই অশ্রুত ভাষা শোনার জন্য আমি চেষ্টা করি, তাদের কি ভাষ্য।

নিজেদের (কমিশন) মধ্যে লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড না থাকলে ভোটের মাঠে লেভেল প্লিং ফিল্ড কিভাবে থাকবে এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘আমরা তো এক মেশিনে তৈরি না। আমাদের পাঁচজনের পাঁচ রকম মত হতেই পারে। অনেক বিষয় রয়েছে পারস্পরিক সমঝোতার মাধ্যমে একটা সিদ্ধান্ত গ্রহণ করি। সেটাই স্বাভাবিক। কোনো কোনো বিষয়ে ভিন্নমত থাকে। সেটা কারেও ওপর চাপিয়ে দিতে পারি না। গণতান্ত্রিক দেশে ভিন্নমত থাকতেই পারে। কমিশনের সাধারণত সংখ্যাগরিষ্ঠতার ভিত্ততেই সিদ্ধান্ত গৃহিত হয়। সেখানে সংখ্যালঘিষ্ঠ হিসাবে আমার প্রস্তাব হয়ত গৃহিত হয় না।

বার্তাজগৎ২৪/সা/হ

Share on: