দুর্দিনে নেতৃত্ব দেওয়া ছাত্রলীগ নেতার করুণ কাহিনী ফেসবুকে ভাইরাল

বার্তাজগৎ২৪ ডেস্কঃ

প্রকাশিতঃ ১৮ নভেম্বর ২০১৯ সময়ঃ সন্ধ্যা ৭ঃ০১
দুর্দিনে নেতৃত্ব দেওয়া ছাত্রলীগ নেতার করুণ কাহিনী ফেসবুকে ভাইরাল
দুর্দিনে নেতৃত্ব দেওয়া ছাত্রলীগ নেতার করুণ কাহিনী ফেসবুকে ভাইরাল

বার্তাজগৎ২৪ ডেস্কঃ

মোতাহার হোসেন রানা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কবি জসীমউদ্দিন হল ছাত্র সংসদের নির্বাচিত এ জি এস ছিলেন। ১৯৯২ সালে সম্মেলনের মধ্য দিয়ে গঠিত বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদের সদস্য ছিলেন তিন।

জানা যায় মোতাহার হোসেন রানার গ্রামের বাড়ি চট্টগ্রামের মিরসরাই উপজেলায়। কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের রাজনীতি শেষ হওয়ার পর নিজ  উপজেলা মিরসরাই ছাত্রলীগকে সংগঠিত করার জন্য তিনি উপজেলা ছাত্রলীগের রাজনীতিতে যোগদান করেন এবং উপজেলা ছাত্রলীগের আহ্বায়ক হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন। ছাত্রজীবনে এমন বর্ণাঢ্য রাজনৈতিক জীবনের অধিকারী মানুষটি পরবর্তী জীবন যুদ্ধে হেরে যান। তাকে নিয়ে আজ একটি স্ট্যাটাস সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়। সেই স্ট্যাটাসটি হুবহু তুলে দেওয়া হলো-

অনেক পুরাতন শার্ট, টুপি পরিহিত ও আশাহীন চোখে তাকিয়ে থাকা ঝরাজীর্ণ ছবির এই মানুষটির নাম- মোতাহার হোসেন রানা।

(সাবেক সদস্য, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটি। সাবেক এজি এস, কবি জসিম উদ্দিন হল, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ও সাবেক সভাপতি, মিরশ্বরাই থানা ছাত্রলীগ)

৯০-এ স্বৈরাচার বিরোধী ছাত্র আন্দোলনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের প্রথম কাতারের নেতা ছিলেন তিনি।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগের এক সভায় তৎকালীন বিরোধী দলীয় নেত্রী ও আজকের মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সামনে ৫ মিনিট বক্তব্য দিয়েছিলেন তিনি। সভামঞ্চে তার বক্তব্য শুনে দেশরত্ন শেখ হাসিনা খুশী হয়ে তার নাম, ঠিকানা ডায়রীতে টুকে নিয়েছিলেন সেদিন।

১৬ই নভেম্বর মিরশ্বরাই উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলন ছিল। উপস্থিত দর্শকের সারিতে চেয়ারে এমন অসহায় হয়ে বসেছিলেন একসময়ের মাঠ কাপানো সাবেক ছাত্রলীগ নেতা মোতাহার হোসেন রানা ভাই। কিন্তু সভামঞ্চে তারই হাতে গড়া কর্মী, সহযোদ্ধা অনেকে থাকলেও কেউ তার খবর রাখেনি।

রাজনীতিতে অর্থ-বিত্ত না থাকলে দাম নাই। টাকা,পয়সা না থাকলে টিকে থাকা যায় না। সংগ্রাম আর ত্যাগের এটাই সত্য। জয় হোক রানা ভাইয়ের মতো ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা সারা বাংলার সকল মুজিব প্রেমী কর্মীদের।

জয় বাংলা - জয় বঙ্গবন্ধু, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ দীর্ঘজীবি হোক।

বার্তাজগৎ২৪/এসএইচ

Share on: