‘রেলস্টেশন থেকে বলিউডে’ পা রাখলেন সেই রানু

বার্তা‌জগৎ২৪ ডেস্কঃ

প্রকাশিতঃ ২৩ অগাস্ট ২০১৯ সময়ঃ রাত ১১ঃ৪৬
‘রেলস্টেশন থেকে বলিউডে’ পা রাখলেন সেই রানু
‘রেলস্টেশন থেকে বলিউডে’ পা রাখলেন সেই রানু

বার্তাজগৎ২৪ ডেস্ক

রাণু মণ্ডল এখন রাতারাতি যেন সেলিব্রিটি। কয়েকদিন আগেও রানাঘাটের রেল স্টেশনে দিন কাটত যাঁর, তাঁর সঙ্গেই এখন সেলফি তোলার ভিড়, সংবাদমাধ্যমের হুড়োহুড়ি। জীবন কত দ্রুত বদলে যেতে পারে, নদিয়ার রানু মণ্ডলই তার জলজ্ব্যান্ত উদাহরণ হয়ে থাকলেন।

কলকাতার রেলস্টেশনে গান গাইতেন রানু মণ্ডল। অগণিত মানুষের ভিড়ে হাওয়ায় ভেসে বেড়াত তার সুমধুর গানের সুর। এত সুরেলা কণ্ঠের গান শুনে মানুষ মুগ্ধ হয়ে থমকে দাঁড়াত। কেউ কেউ তার গান ভিডিও করে ছেড়ে দেয় ফেসবুকে। দ্রুতই ভাইরাল হয় রানু মণ্ডলের গানের ভিডিও।

এই ভিডিও চোখে পড়ে বলিউডের জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী হিমেশ রেশামিয়ার। তিনি যোগাযোগ করেন রানু মণ্ডলের সঙ্গে। কলকাতার রেলস্টেশন থেকে তুলে এনেছেন টিভি রিয়েলিটি শো ‘সুপারস্টার সিঙ্গার’ অনুষ্ঠানে। লতা মঙ্গেশকরের বিখ্যাত ‘পিয়ার কা নাগমা’ গানটি রানু এতো নিখুঁত কণ্ঠে গেয়েছেন যেন সেই কিংবদন্তি শিল্পী নিজেই গানটি গাচ্ছেন।

শিশু কণ্ঠশিল্পীদের রিয়েলিটি শো ‘সুপারস্টার সিঙ্গার’র বিচারক হিমেশ রেশামিয়া, অলোকা ইয়াগনিক ও জাভেদ আলি। সেখানেই হিমেশ আমন্ত্রণ জানালেন রানু মণ্ডলকে। শুধু তাই নয়, রানুকে বলিউডের সিনেমায় গান গাওয়ার সুযোগও করে দিয়েছেন তিনি।

কয়েকদিন আগে কলকাতার একটি নামী পুজোর থিম সং গেয়েছিলেন রাণু মণ্ডল। এর পরেই মুম্বই থেকে হিমেশ রেশমিয়ার একটি নতুন গানের রেকর্ডিংয়ের প্রস্তাব আসে তাঁর কাছে। মুম্বইতে গিয়ে হিমেশ রেশমিয়ার ‘তেরি মেরি কহানি’ গানটি রেকর্ড করেছেন রাণুদেবী। বিমানবন্দর ছাড়ার আগে সেই গানও কিছুটা গেয়ে শোনান তিনি। বদলে যাওয়া জীবন যে তিনি পুরোদমে উপভোগ করছেন, তাও জানাতে ভোলেননি রাণুদেবী।

শুক্রবার সকালে মুম্বাই থেকে কলকাতায় ফেরেন রাণু। মুম্বাইয়ের সুরকার হিমেশ রেশমিয়ার একটি গানের রেকর্ডিংয়ে গিয়েছিলেন রাণুদেবী। সেখান থেকে ফেরার সময় বিমানবন্দরের বাইরে আসতেই রাণু মণ্ডলকে দেখেই চিনতে পারেন অন্যান্য যাত্রীরা। অনেকেই এগিয়ে এসে তাঁর সঙ্গে সেলফিও তোলেন। রাণুদেবীর জন্য আগে থেকেই অপেক্ষা করছিল গাড়ি। তাতে বসিয়ে দ্রুত তাঁকে সেখান থেকে বের করে নিয়ে যাওয়া হয়।

রানুকে বলিউডের সিনেমায় গান গাওয়ার সুযোগও করে দিয়েছেন তিনি। এ প্রসঙ্গে হিমেশ বলেন, ‘সালমান ভাইয়ের বাবা সেলিম খান আঙ্কেল একদিন আমাকে উপদেশ দিয়েছিলেন, জীবনে যদি কখনও কোন প্রতিভাবান মানুষের সংস্পর্শ পাই, আমি যেন তাকে হারিয়ে যেতে না দিই, বরং তাকে আমার সান্নিধ্যে রাখি। তার প্রতিভাকে বিকশিত হতে সহযোগিতা করতে বলেছিলেন তিনি।’

‘আজ আমি রানুদির সাক্ষাৎ পেয়েছি। আমি অনুভব করি, তিনি ঐশ্বরিকভাবেই আশীর্বাদপুষ্ট। তার গান আমাকে মোহিত করে। আমার পক্ষ থেকে যতটুকু করা সম্ভব আমি তার সর্বোচ্চটুকু তার জন্য করেছি। তার কাছে ঈশ্বরের একটি উপহার আছে যা গোটা দুনিয়ার ছড়িয়ে দেওয়া প্রয়োজন। তার সুললিত কণ্ঠস্বর সবার কাছে পৌঁছে দিতে আমি সহযোগিতা করব। আমার আগামী সিনেমা ‘হ্যাপি হার্ডি অ্যান্ড হীর’তে তিনি গান করবেন। তার প্রথম সিনেমার গান হতে যাচ্ছে ‘তেরি মেরি কাহানি’, যোগ করেন তিনি।

বার্তা‌জগৎ২৪.কম/এফ এইচ পি