• মঙ্গলবার, ১৮ মে ২০২১ , ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮
  • আর্কাইভ

মঙ্গলবার, ১৮ মে ২০২১ , ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮

বাগেরহাটে পুরুষশূন্য হয়ে পড়েছে শতাধিক পরিবার

বাগেরহাট প্রতিনিধিঃ
প্রকাশিত :শনিবার, এপ্রিল ১৭, ২০২১, ১০:১৬

  • সাবেক ইউপি সদস্য মিকাইল হোসেন চৌধুরীর বাড়িঘর ভাঙচুর

    বাগেরহাট জেলার মোল্লাহাটের শাসন গ্রামে হামলা ও গ্রেফতার এড়াতে শতাধিক পরিবারের পুরুষ সদস্যরা এলাকা ছেড়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন। জীবন ও সম্মান বাঁচাতে নারী ও শিশুরাও এমন পলাতক জীবনযাপন করছেন। এলাকা ছেড়ে আত্মীয় স্বজনদের বাড়িতে অবস্থান আছে অনেকে।


     

    প্রতিপক্ষের হুমকি-ধমকিতে পুরুষশূন্য পরিবারগুলোর ফসলের পরিচর্যার জন্য শ্রমিকও যেতে পারছে না মাঠে, ফসলও ঘরে তুলতে পারছেন না। 

     

    বৃহস্পতিবার (১ এপ্রিল) মোল্লাহাট উপজেলার চুনখোলা ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের সদস্য প্রার্থী মামুন শেখ ও কিবরিয়া শরীফের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় মামুন শেখের চাচা আসাদ শেখ নিহত হন। এ নিয়ে মামুন শেখের সমর্থকদের তাণ্ডবে শাসন গ্রামের শতাধিক পরিবার এখন পুরুষশূন্য। 

    ভুক্তভোগীরা জানান, আসাদ শেখ নিহতের পরে মামুন শেখের সমর্থকরা আমাদের শতাধিক বাড়িঘর ভাঙচুর করে। মামুনের সমর্থকদের হামলা থেকে বাঁচতে এলাকা ছেড়ে শতাধিক মানুষ পালিয়ে যায়।

     

    শনিবার (০৩ এপ্রিল) নিহত আসাদ শেখের মেয়ে মমতাজ বেগম বাদী হয়ে চুনখোলা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মুন্সি তানজিল হোসেনকে সহ ৮৭ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত আরও ১০-১২ জনকে আসামি করে মোল্লাহাট থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। 

     

    আরও পড়ুন- 

    ১- শ্রমিক-পুলিশ সংঘর্ষ, ৩ লাখ টাকা করে ক্ষতিপূরণ

    ২- হাসপাতালে করোনা রোগীর আত্মহত্যা

    ৩- বাঁশখালী কয়লা বিদ্যুৎ কেন্দ্রে পুলিশের গুলিতে ৫ শ্রমিক নিহত

    মামলাটি পরবর্তীতে বাগেরহাট জেলা গোয়েন্দা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়। এ মামলায় পুলিশ আসামি সাবেক ইউপি সদস্য মিকাইল হোসেন চৌধুরীকে গ্রেফতার করেছে । 

     

    তবে পুলিশের হাতে গ্রেফতার হলেও রক্ষায় পায়নি মিকাইল চৌধুরীর বাসভবন। জানা গেছে, মামুন শেখের নেতৃত্বে অর্ধশতাধিক লোক হ্যামার দিয়ে মিকাইলের ঘর ভাঙচুর ও লুটপাট করে।  ফ্রিজ, টেলিভিশন, খাটসহ মূল্যবানসামগ্রী ভেঙে ফেলে। এ অবস্থায় ভয়ে পালিয়ে গেছে মিকাইলের স্ত্রী সন্তান।

     

    এ কান্ড শুধু মিকাইল চৌধুরীর বাড়ি নয়, শাসন গ্রামের সালাউদ্দিন চৌধুরী,একরামুল হোক চৌধুরী,নাজমুল চৌধুরী  এনামুল হোক চৌধুরী,  কিবরিয়া শরিফ, রফিক চৌধুরী, ইউসুফ চৌধুরীসহ শতাধিক মানুষের বাড়িঘর ভাঙচুর করেন ই মামুন শেখের সমর্থকরা। পুরুষদের না পেয়ে নারীদেরও ভাঙচুরের সময় মারধরও করেন। 

     

    মিকাইল চৌধুরীর ছোট ভাইয়ের স্ত্রী রওশন বেগম বলেন, আসাদ শেখ যে রাতে মারা যায়, ওই রাতেই তার ভাইপো মামুনের লোকজন এসে আমাদের অনেকের বাড়িঘর, মালামাল ভাঙচুর করে।  ঘরের মধ্যে থাকা মালামাল লুট করে নেয়। পরবর্তী তিন দিন এসে আমার ভাশুরের এই ভবন ভেঙে দিয়ে গেছে তারা।  যাকে সামনে পেয়েছে তাকে মারধর করেছে। 

     

    পলাতক নাসির মোল্লার স্ত্রী বেবি বেগম বলেন, হত্যার পর থেকে আমার স্বামী পলাতক রয়েছে। মাঠে কিছু ধান রয়েছে, তাতেও পানি দিতে পারছি না। বাড়ি এসে বলে গেছে পানি দিয়ে হবে কি, ধান তো আমরা নিয়ে যাব। 

     

    হালিমা বেগম,মাহফুজা বেগমসহ আরও কয়েকজন বলেন, যেভাবে বাড়িঘর ভেঙেছে তাতে বসবাস করার কোনো অবস্থা নেই। ঘরের মধ্যে থাকা মূল্যবান মালামাল লুট করেছেন, যা নিতে পারেননি সেসব ভাঙচুর করেছে। ঘরের চালও কুপিয়েছে। ঘরের মধ্যের লেপ, তোশক, বালিশ ও কাপড় চোপরেও আগুন ধরিয়ে দিয়েছিল তারা। স্বামী-ছেলে সবাই পালিয়ে গেছে তাদের ভয়ে। কি করব, কীভাবে বাঁচব জানি না।

     


    মোল্লাহাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কাজী গোলাম কবির বলেন,জেলা গোয়েন্দা পুলিশ হত্যা মামলাটি গ্রহণ করায় তারা তদন্ত করছেন।  প্রতিদিন পুলিশ নিয়মিত টহল দিচ্ছে।  এলাকা এখন শান্ত রয়েছে। যে যার প্রয়োজনীয় কাজ করছেন।

     

    তিনি আরও বলেন,  ভাঙচুরের ঘটনায় হানিফের স্ত্রী হাফিজা বেগম ২৩ জনকে আসামি করে একটি মামলা করেছেন। মামলাটি আমরা গুরুত্বের সঙ্গে তদন্ত করে দেখছি।

    /এস এ. আকাশ

    • সর্বশেষ
    • সর্বাধিক পঠিত
    শনি
    রোব
    সোম
    মঙ্গল
    বুধ
    বৃহ
    শুক্র

    সম্পাদক: দিদারুল ইসলাম
    প্রকাশক: আজিজুর রহমান মোল্লা
    মোবাইল নাম্বার: 01711121726
    Email: bartajogot24@gmail.com & info@bartajogot24.com