• বৃহস্পতিবার, ৬ মে ২০২১ , ২৩ বৈশাখ ১৪২৮
  • আর্কাইভ

বৃহস্পতিবার, ৬ মে ২০২১ , ২৩ বৈশাখ ১৪২৮

প্রেমিকাকে ধর্ষণ, ভিডিও ধারন অতঃপর ব্ল্যাকমেইল

নীলফামারী প্রতিনিধিঃ
প্রকাশিত :সোমবার, মে ৩, ২০২১, ১০:৩৫

  • ফাইল ফটো

    নীলফামারীর সৈয়দপুরে প্রেমিকাকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে সেই ধর্ষণের ভিডিও ধারন করেছে প্রমিকের বন্ধুরা বলে অভিযোগ উঠেছে মুন্না (২৫) নামে এক যুবক ও তার বন্ধুদের বিরুদ্ধে।  শুধু তাতেই খান্ত হয়নি কিছুদিন পর মেয়েটির অন্যত্রে বিয়ে হয়ে গেলেও সেই ভিডিও দেখিয়ে ব্ল্যাকমেইল শুরু করে মুন্না ও তার বন্ধুরা।


     

    এ ঘটনায় রোববার ধর্ষকসহ ওই তিন বন্ধুকে পৃথক স্থান থেকে পুলিশ আটক করেছে। এ সময় তাদের কাছ থেকে ২ মিনিট ৩০ সেকেন্ডের ধর্ষণের ভিডিও ক্লিপটিও উদ্ধার করেছে পুলিশ।

     

    আটককৃতরা হলো- উপজেলার বাঙ্গালীপুর ইউনিয়নের লক্ষণপুর চড়কপাড়ার আব্দুল মালেকের পুত্র মুন্না (২৫), এবং একই গ্রামের পাঠানপাড়ার শওকত আলীর পুত্র আলাল (২৫) ও আমজাদের মোড়ের শহিদুল ইসলামের পুত্র তৌফিক ইসলাম তুহিন (২০)। এরা তিনজনই পরস্পরের বন্ধু।

     

    পুলিশ  জানায়,২০১৮ সালে সৈয়দপুরের বাঙ্গালীপুর ইউনিয়নের লক্ষণপুর চড়কপাড়ার মাদ্রাসাপড়ুয়া ছাত্রীর সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে মুন্নার। সে বছরের ৭ সেপ্টেম্বর পাঠানপাড়ার আলালের বাড়িতে প্রেমিকাকে ডেকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষণ করে প্রেমিক মুন্না। এ সময় প্রেমিক তার বন্ধুদের দিয়ে ওই ধর্ষণের ভিডিও লুকিয়ে মোবাইলে ধারণ করে রাখে।

     

    এরপর ২০২০ সালের ২৪ জানুয়ারি একই গ্রামের আশিকুর রহমানের সঙ্গে ওই মাদ্রাসাছাত্রীর বিয়ে সম্পন্ন হয়। তাদের সংসার ভালোই চলছিল। তবে সে সুখে আগুন দিতে গত ১০ এপ্রিল রাতে মুন্নার বন্ধু তুহিন ওই ছাত্রীর সঙ্গে দেখা করে। এবং তাকে জানায় মুন্নার সঙ্গে তার ধর্ষণের একটি ভিডিও ক্লিপ রয়েছে তাদের কাছে।

     

    আরো পড়ুন -

    ১.আবারও শাপলা চত্তরকান্ড তৈরি করতে চেয়েছিলো হেফাজত

    ২.বাল্কহেডে স্পিডবোটের ধাক্কা, ২৬ মৃতদেহ উদ্ধার, নিখোঁজ অনেকে

    ৩- ফের সুন্দরবনে আগুন: তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন

    ৪-খালেদার বেড়েছে শ্বাসকষ্ট, সিসিইউতে স্থানান্তর

    ৫- সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে ঈদের ছুটি ৩ দিন

     

    ভিডিও ক্লিপটি সত্যি আছে কিনা যাচাই করতে গত ১৪ এপ্রিল ওই ছাত্রী শহরের প্লাজা মার্কেটে একটি রেস্টুরেন্টে তুহিনের সঙ্গে দেখা করে। এরপর তুহিন একটি ফেসবুক আইডি থেকে ওই ভিডিও ক্লিপটি দেখায় ওই ছাত্রীকে। এ সময় সেটি ডিলিট করার জন্য অনুরোধ করলে তুহিন ২ লাখ টাকা অথবা দৈহিক মেলামেশা করার প্রস্তাব দেয় তাকে। তবে মুন্নার কথায় রাজি না হয়ে বাড়ি ফেরে ওই ছাত্রী।

     


    গত শনিবার আবারও তুহিন মোবাইল ফোনে ওই ছাত্রীকে টাকা অথবা দৈহিক মেলামেশার প্রস্তাব দেয়। তবুও রাজি না হলে ভিডিও ক্লিপ ইন্টারনেট ও ফেসবুকে ছেড়ে দেয়ার হুমকি প্রদান করে। এ ঘটনার পর বিকেলে ওই ছাত্রী বাদী হয়ে সাবেক প্রেমিকসহ তিন বন্ধুকে আসামি করে থানায় মামলা দায়ের করেন। মামলার পরপরই  তুহিন, আলাল এবং মুন্নাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

     

    এ বিষয়ে সৈয়দপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল হাসনাত খান বলেন, ভিকটিমকে রোববার শারীরিক পরীক্ষার জন্য নীলফামারী আধুনিক সদর হাসপাতালে এবং গ্রেপ্তারকৃত আসামিদের আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। 
     

    /এস এ. আকাশ

    • সর্বশেষ
    • সর্বাধিক পঠিত
    শনি
    রোব
    সোম
    মঙ্গল
    বুধ
    বৃহ
    শুক্র

    সম্পাদক: দিদারুল ইসলাম
    প্রকাশক: আজিজুর রহমান মোল্লা
    মোবাইল নাম্বার: 01711121726
    Email: bartajogot24@gmail.com & info@bartajogot24.com