• বৃহস্পতিবার, ৬ মে ২০২১ , ২৩ বৈশাখ ১৪২৮
  • আর্কাইভ

বৃহস্পতিবার, ৬ মে ২০২১ , ২৩ বৈশাখ ১৪২৮

করোনার মহামারিতে আশার আলো রফতানি আয়ে

অর্থনীতি ডেষ্কঃ
প্রকাশিত :সোমবার, মে ৩, ২০২১, ১১:১৮

  • ফাইল ফটো

    দেশের করোনা ভাইরাসের মহামারির মধ্যেও রফতানি আয়ে বেশ ইতিবাচক ধারা লক্ষ্য করা গেছে। গত বছরের দিক চোখ রাখলে দেখা যাবে লকডাউনে এগ্রিল মাসের রফতানি আয় ৫২ কোটি ডলারে নেমে যায়। তবে এ বছর এপ্রিল মাসে ৩১৩ কোটি ডলারের পণ্য রফতানি হয়েছে। যা ২০১৯ সালের এপ্রিলে ৩০৮ কোটি ডলারের পণ্য রফতানি হয়েছিল।


     

    সোমবার (৩ মে) রফতানি উন্নয়ন ব্যুরো (ইপিবি) প্রকাশিত সর্বশেষ পরিসংখ্যান থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

     

    গত বছরের তুলনায় এ বছর আয়  ৫০৩ শতাশ বেশি। শুধু তাই নয়,  সেই তুলনায়ও রফতানি আয় বেড়েছে এক দশমিক ৬২ শতাংশ। তার মানে রফতানি প্রবৃদ্ধিতে ইতিবাচক পর্যায়ে আছে দেশ।

     

    আরো পড়ুন -

    ১.আবারও শাপলা চত্তরকান্ড তৈরি করতে চেয়েছিলো হেফাজত

    ২.বাল্কহেডে স্পিডবোটের ধাক্কা, ২৬ মৃতদেহ উদ্ধার, নিখোঁজ অনেকে

    ৩- ফের সুন্দরবনে আগুন: তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন

    ৪-খালেদার বেড়েছে শ্বাসকষ্ট, সিসিইউতে স্থানান্তর

    ৫- সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে ঈদের ছুটি ৩ দিন

     

    ইপিবি’র পরিসংখ্যান বলা হয়েছে, তৈরি পোশাক, চামড়া ও চামড়াপণ্য, পাট ও পাটপণ্য, হোম টেক্সটাইল, প্লাস্টিক পণ্য, রাসায়নিক পণ্য ও প্রকৌশল পণ্যের রফতানি ইতিবাচক ধারায় ফেরার কারণেই সার্বিকভাবে পণ্য রফতানিতে প্রবৃদ্ধি ঘটেছে। কিন্তু কমেছে হিমায়িত খাদ্যের রফতানি । 

     

    সার্বিকভাবে চলতি ২০২০-২১ অর্থবছরের প্রথম ১০ মাসে (জুলাই-এপ্রিল) পণ্য রফতানি হয় তিন হাজার ২০৭ কোটি ডলারের। যা গত অর্থবছরের তুলনায় আট দশমিক ৭৫ শতাংশ বেশি। চলতি বছরের প্রথম ১০ মাসে দুই হাজার ৬০০ কোটি ডলারের পোশাক রফতানি হয়েছে। এই আয় গত বছরের একই সময়ের তুলনায় ছয় দশমিক ২৪ শতাংশ বেশি।

     


    ইপিবি’র তথ্যমতে , এ বছরের জুলাই-এপ্রিল সময়ে ৭৬ কোটি ডলারের চামড়া ও চামড়া পণ্য, ৪৩ কোটি ডলারের প্রকৌশল পণ্য, ৩৯ কোটি ডলারের হিমায়িত খাদ্য রফতানি হয়েছে। এর মধ্যে চামড়া ও চামড়া পণ্যে সাড়ে আট শতাংশ প্রবৃদ্ধি হয়েছে। তবে আরও ৮৯৩ কোটি ডলার প্রয়োজন চলতি বছরের লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করতে। 

     

    ইপিবি’র পরিসংখ্যান আরও বলা হয়েছে, ইতিমধ্যে চলতি বছরের প্রথম ১০ মাসে ১০৩ কোটি ডলারের পাট ও পাটজাত পণ্য রফতানি হয়েছে যা গত বছরের একই সময়ের তুলনায় ৩০ দশমিক ৮৮ শতাংশ বেশি। এছাড়া ৯৫ কোটি ডলারের হোম টেক্সটাইল রফতানি হয়েছে। এক্ষেত্রে ৫৪ শতাংশের বেশি প্রবৃদ্ধি হয়েছে। মে ও জুন মাসে এই পরিমাণ রফতানি অসম্ভব বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

    /এস এ. আকাশ

    • সর্বশেষ
    • সর্বাধিক পঠিত
    শনি
    রোব
    সোম
    মঙ্গল
    বুধ
    বৃহ
    শুক্র

    সম্পাদক: দিদারুল ইসলাম
    প্রকাশক: আজিজুর রহমান মোল্লা
    মোবাইল নাম্বার: 01711121726
    Email: bartajogot24@gmail.com & info@bartajogot24.com