আজ শনিবার, ১০, ডিসেম্বর ২০২২

| কাল
০১ঃ ০৫ঃ ৫৩ |

Logo
সর্বাধিক পঠিত | সর্বশেষ | গ্যালারী |

যে কারণে মুখে হাত দিয়ে ছবি তুলেছে জার্মান ফুটবলাররা!

বার্তাজগৎ২৪ ডেস্ক :

প্রকাশ: বৃহস্পতিবার ২৪ নভেম্বর, ২০২২ - ০৩:২১ এএম

জাপানের বিপক্ষে মাঠে নামার আগেই ফিফাকে প্রতারক, বিশ্বাসঘাতক উল্লেখ করে আদালতে নিয়ে যাওয়ার হুমকি দেয় জার্মানি। সেই প্রতিবাদেই
মাঠে নামার আগে ফটো সেশনে মুখে হাত দিয়ে রেখেছিলেন কেন জার্মান ফুটবলাররা! অভিনব এই ফটোসেশনের উদ্দেশ্যটা-ই বা কি!

মধ্যপ্রাচ্যের মুসলিম দেশ কাতারে সমকামিতা শাস্তিযোগ্য অপরাধ। বিশ্বকাপের আগে এটি নিয়ে ইউরোপের বেশ কয়েকটি এলজিবিটি সংস্থা প্রতিবাদ জানায়। সেই প্রতিবাদে নেদারল্যান্ডস, ইংল্যান্ড, ফ্রান্স, ডেনমার্ক, বেলজিয়াম, ডেনমার্ক, সুইডেন, জার্মানির মতো দেশগুলো এলজিবিটি সংস্থাগুলোর সঙ্গে একামত প্রকাশ করেন। এর প্রতিবাদে ‘ওয়ান লাভ’নামের বিশেষ একটি আর্মব্যান্ড পড়ে খেলতে চেয়েছিল দলগুলো। সমকামীদের সমর্থন জানিয়ে ‘ওয়ান লাভ’ আর্মব্যান্ড পরতে না দেয়ার ফিফার সিদ্ধান্তের কড়া প্রতিবাদ জানিয়ে ভিন্ন পন্থা অবলম্বন করেছে জার্মানি। জাপানের বিপক্ষে ম্যাচ শুরুর আগে দলীয় ছবি তুলতে গিয়ে হাত দিয়ে মুখ ঢেকে ছবি তুলেছে জার্মান ফুটবলাররা। মুখে না বললেও, সবাই ধরে নিচ্ছে, এটা হলো ফিফার সিদ্ধান্তের প্রতিকী এবং জোরালো প্রতিবাদ।

মধ্যপ্রাচ্যের মুসলিম দেশ হিসেবে কাতার কখনোই সমকামীদের অধিকারের পক্ষে অবস্থান নেবে না- এটাই স্বাভাবিক। এ কারণেই ফিফা আয়োজক দেশ কাতারের প্রতি সম্মান জানিয়ে এবারের বিশ্বকাপে সমকামীদের অধিকার প্রতিষ্ঠার এসব আযোজনকে নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছে।

কিন্তু জার্মানি, ইংল্যান্ড এবং নেদারল্যান্ডসের ফুটবলাররা এই নিষেধাজ্ঞা মানতে নারাজ। ফিফা বলেছে কেউ লাভ আর্মব্যান্ড পরে মাঠে আসলে নামার আগেই হলুদ কার্ড দেখবেন তিনি। শেষ পর্যন্ত এই তিন দেশের ফুটবল ফেডারেশনের কর্মকর্তাদের হস্তক্ষেপে ফুটবলাররা ‘ওয়ান লাভ’ আর্মব্যান্ড পরে মাঠে নামেননি। কিন্তু জার্মানরা সেই নিষেধাজ্ঞার প্রতিক্রিয়া মুখ ঢেকে ছবি তুললেন।

দোহায় বিমান থেকে নামার পর জার্মানির অভ্যন্তরীণ বিষয়ক মন্ত্রী ন্যান্সি ফাসের বলেন, ‘যেভাবে ফুটবল সংস্থাগুলিকে চাপে ফেলা হচ্ছে তা একেবারেই উচিত নয়। অত্যচার এবং বৈষম্যের বিরুদ্ধে ফিফা আমাদের পাশে দাঁড়াচ্ছে না, এটা ভাবাই যায় না। আধুনিক সময়ে এই কাজ একেবারেই ঠিক নয়।’

জার্মান ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন তার আগে বিবৃতি দিয়ে জানায়, দেশের ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন যে মূল্যবোধে বিশ্বাস করে তার প্রতীক হিসাবেই আর্মব্যান্ড পরার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল। নিজেদের কথা বলার অধিকার চাওয়া হয়েছিল। কোনও রাজনৈতিক বার্তা দিতে চাওয়া হয়নি।

প্রসঙ্গত, কাতার প্রশাসনের বৈষম্যমূলক আইনের প্রতিবাদে ইউরোপের সাতটি দেশের অধিনায়কেরা ‘ওয়ান লাভ’ আর্মব্যান্ড পরে মাঠে নামার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন। ফিফা কড়া নির্দেশ জারি করে এবং উয়েফার উপর চাপ তৈরি করায় সুর নরম করতে বাধ্য হয়েছে দেশগুলি।

সেই সাত দেশের অন্যতম জার্মানি ফিফার এই আচরণ মেনে নিতে পারছিল না। তাই জাপানের বিরুদ্ধে বিশ্বকাপ অভিযান শুরুর আগেই ফিফার বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার কথা জানায় জার্মানির ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন। ক্ষোভপ্রকাশ করে এক কর্মকর্তা বলেন, ‘আমাদের একটা চরম পরিস্থিতির মধ্যে ফেলা হয়েছিল। এক রকম ব্ল্যাকমেইল করা হয়েছে। ওরাই আমাদের এই পথে যেতে বাধ্য করেছে।’

সর্বমোট শেয়ারঃ ১০০
Facebook Twitter WhatsApp Messanger
আমাদের অ্যাপ

স্বত্ব © ২০২২ বার্তাজগৎ২৪ Design & Developed By softicode