• বুধবার, ১৪ এপ্রিল ২০২১ , ১ বৈশাখ ১৪২৮
  • আর্কাইভ

বুধবার, ১৪ এপ্রিল ২০২১ , ১ বৈশাখ ১৪২৮

মঙ্গলে মিললো অদ্ভুত আকৃতির পাথরের সন্ধান

বার্তাজগৎ২৪ ডেস্ক:
প্রকাশিত :রবিবার, ফেব্রুয়ারী ২৮, ২০২১, ০৪:১৬

  • মঙ্গলে নাসার রোবট

    ধারণা করা হয়, লাল রঙের মঙ্গল গ্রহে একসময় প্রাণের অস্তিত্ব ছিলো। কালের পরিক্রমায় তা বিবর্তন হয়ে গেছে নানা ভাবে। বিজ্ঞানীরা তাই প্রাণের সন্ধানে প্রতিনিয়ত গবেষণা করে যাচ্ছেন। শুধু তাই নয়, মঙ্গলে বসবাসযোগ্য পরিবেশের সন্ধানও করছেন তারা।


    এসকল গবেষণার ধারাবাহিকতায় এবার দেখা মিললো মঙ্গলের পৃষ্ঠে অদ্ভুত আকৃতির পাথর। গত সপ্তাহের শুরুর দিকে এ ব্যাপারটি নিশ্চিত করেছে মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসা। নাসা থেকে প্রেরণ করা জিওলজিস্ট রোবটের পারসিভারেন্স মাস্টক্যাম-জেড ক্যামেরায় ধরা পড়ে হাই রেজুলেশনের ছবি যাতে পাথর দেখা যাচ্ছে।

    মঙ্গল থেকে পাঠানো এই ছবিতে অনেক বিস্তারিত তথ্য পাওয়া গিয়েছে। ছবিতে “জেজেরো-ক্রেটার” এর আশেপাশের অভূতপূর্ব এলাকা দেখা যায়। জেজেরো-ক্রেটার কে ধারণা করা হয় মঙ্গলের “ডেলটা” নদীর শুকিয়ে যাওয়া এলাকা হিসেবে।

    মঙ্গলের অসংখ্য পাথরের ছবির মধ্যে তুলনা করলে দেখা যায় এই পাথরের আকৃতি আলাদা। কালো, লম্বা ধরনের এই পাথর দেখতে অনেকটা সামুদ্রিক স্তন্যপায়ী প্রাণীর মতো। তাই বিজ্ঞানীরা এর নাম দিয়েছে, “হারবর সিল রক”।

    মাস্টক্যাম-জেড এর গবেষক জিম বেল বলেন, অনেক বছর ধরে তীব্র বাতাসের আঘাতের ফলাফল হিসেবে এই পাথর গঠিত হয়েছে।

    মঙ্গল গ্রহের পাথর গবেষণা প্রাণের অস্তিত্ব গবেষণার ক্ষেত্রেও গুরুত্বপূর্ণ। ধারণা করা হয় এইসব পাথর প্রাণীর বেঁচে থাকার এনার্জির সাথে সম্পর্কিত। কারণ পাথরে যেসমস্ত কেমোলিথোট্রোফস পাওয়া যায় সেসব বেঁচে থাকার জন্য যে শক্তি পেত, একই শক্তির উৎস হয়তো কোনো জীব বা প্রাণী ব্যবহার করতো। এমনটাই জানান জার্মান মহাকাশ বিজ্ঞানী তেতইয়ানা মিলোজেভিচ।


    কেমোলিথোট্রোফস হলো এমন এক ধরনের পদার্থ যা বেঁচে থাকার জন্য শক্তি হিসেবে ব্যবহার করতে পারে অজৈব যৌগকে। অর্থাৎ কোনো জৈবিক শক্তি ব্যবহার না করেই যা টিকে থাকতে পারে। এ বিষয়ে একটি গবেষণাপত্র প্রকাশ করেছে ভিয়েনা ইউনিভার্সিটির গবেষণা দল।

    নাসার রোবটের প্রেরণ করা ছবি থেকে প্রতিনিয়ত গবেষণা করে যাচ্ছে নাসা এবং জার্মানের মহাকাশ সংস্থা। মঙ্গলে বসবাসের মতো পরিবেশের অস্তিত্ব নিয়ে নানা ধরনের তথ্য আর ছবি প্রেরণ করে যাচ্ছে রোবট। ভবিষ্যতে হয়তো রোবটের বদলে মানুষ পৌঁছাবে মঙ্গলে, হয়তো বসবাসের মতো পরিবেশও তৈরি করা সম্ভব, এমনই ধারণা বিজ্ঞানীদের। সোর্সঃ ফিউচারিজম।

    • সর্বশেষ
    • সর্বাধিক পঠিত
    শনি
    রোব
    সোম
    মঙ্গল
    বুধ
    বৃহ
    শুক্র

    সম্পাদক: দিদারুল ইসলাম
    প্রকাশক: আজিজুর রহমান মোল্লা
    মোবাইল নাম্বার: 01711121726
    Email: bartajogot24@gmail.com & info@bartajogot24.com