এসএসসিতে গুজব ছড়ালে ব্যবস্থা, প্রশ্নফাঁসের সুযোগ নেই: শিক্ষামন্ত্রী

বার্তাজগৎ২৪/কেএইচ
বার্তাজগৎ২৪ ডেস্ক: বার্তাজগৎ২৪ ডেস্ক:
প্রকাশিত: ৪:২০ অপরাহ্ন, ১৩ সেপ্টেম্বর ২০২২ | আপডেট: ৫:৩৬ পূর্বাহ্ন, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২
সংগৃহীত ছবি

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, আগামী ১৫ সেপ্টেম্বর (বৃহস্পতিবার) থেকে এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা শুরু হতে যাচ্ছে। এই পরীক্ষায় প্রশ্নফাঁসের কোনো সুযোগ নেই। এ বিষয়ে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী তৎপর রয়েছে। কেউ প্রশ্নফাঁসের গুজব ছড়ালে তৎক্ষণিক তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আজ মঙ্গলবার (১৩ সেপ্টেম্বর) রাজধানীর আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউটে জাতীয় শিক্ষা রূপরেখা-২০২১ এর অনলাইন প্রশিক্ষণ উদ্বোধন অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন।

শিক্ষামন্ত্রী সাংবাদিকদের বলেন, সারাদেশে সুষ্ঠুভাবে এসএসসি ও সমমান পরীক্ষা সম্পন্ন করতে সব ধরনের প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। এর ফলে কারো পক্ষেই প্রশ্ন ফাঁস করা সম্ভব নয়। যদি কেউ এ বিষয়ে গুজব ছড়ায়, তার বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী এ বিষয়ে সর্বদা তৎপর রয়েছে।

শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে নির্দেশনা দেওয়ার পরও প্রতিবছর কোচিং সেন্টার পরীক্ষার সময় খোলা রাখা হয় কেন, সি সম্পর্কে শিক্ষামন্ত্রী সাংবাদিকদের বলেন, পাবলিক পরীক্ষার আগে সারা দেশের কোচিং সেন্টারগুলো বন্ধ রাখা হয়। আমরা চাই এ সময় অভিভাবকরা যেন তাদের সন্তানদের কোচিং সেন্টারে না পাঠান। শিক্ষার্থীরা না এলে কোচিং সেন্টার এমনিতেই বন্ধ থাকবে। এরপরও যদি কোনো কোচিং সেন্টার খোলা রাখা হয়, তবে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মন্ত্রী বলেন, নতুন কারিকুলামে ধারাবাহিক ও সামষ্টিক মূল্যায়ন হবে। ধারাবাহিক মূল্যায়নের জন্য একটি অ্যাপ তৈরি করা হবে। এর মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের বছর শেষে মূল্যায়ন করা হবে। এক্ষেত্রে শিক্ষকদের বেশি গুরুত্ব দিতে হবে।

এর আগে জাতীয় শিক্ষাক্রম রূপরেখা ২০২১ অনলাইন প্রশিক্ষণের অ্যাপ এর উদ্বোধন করেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। এ সময় তিনি বলেন, ২০২৩ সাল থেকে ষষ্ঠ ও সপ্তম শ্রেণিতে নতুন কারিকুলামের বই দেওয়া হবে। বিশ্বের চাহিদার সঙ্গে মিল রেখে আমরা নতুন কারিকুলামের রূপরেখা তৈরি করেছি। প্রতিবছর এটি ক্লাসভিত্তিক বাস্তবায়ন করা হবে।

মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের (মাউশি) মহাপরিচালক অধ্যাপক নেহাল আহমেদের সভাপতিত্বে এসময় আরও বক্তব্য রাখেন- শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সচিব আবু বক্কর ছিদ্দীক, কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগের সচিব কামাল হোসেন, জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ডের চেয়ারম্যান মো. ফরহাদুল ইসলাম প্রমুখ।

বার্তাজগৎ২৪/কেএইচ