নোয়াখালীতে ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানকে ১২৫ মামলায় ৮৮ হাজার টাকা জরিমানা

নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ৮:৩৮ অপরাহ্ন, ০৩ জুলাই ২০২১ | আপডেট: ৩:০৫ পূর্বাহ্ন, ২৯ জুন ২০২২

নোয়াখালীতে সরকারঘোষিত সাতদিনের কঠোর লকডাউনের দ্বিতীয় দিন ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেছে জেলা প্রশাসন। এ সময়ে স্বাস্থ্যবিধি অমান্য করায় বিভিন্ন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানকে ১২৫ মামলায় ৮৭ হাজার ৯০০ টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

শুক্রবার (২ জুলাই) দিনব্যাপী জেলাজুড়ে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে অভিযান চালিয়ে এ জরিমানা করা হয়। বিষয়টি বিবিসি জার্নাল কে নিশ্চিত করেছেন জেলা প্রশাসনের সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সৈকত রায়হান।

জেলা প্রশাসনের মিডিয়া সেল সূত্রে জানা যায়, জেলা প্রশাসক খোরশেদ আলম খানের নির্দেশে এবং অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট তারিকুল আলমের তত্ত্বাবধানে করোনা রোধে দিনব্যাপী ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে অভিযান পরিচালিত হয়।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটদের নেতৃত্বে ২১ টিম অভিযান চালিয়ে ১২৫ মামলায় ৮৭ হাজার ৯০০ টাকা জরিমানা আদায় করেন। এ সময় মানুষকে মাস্ক পরিধানসহ স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণের আহ্বান জানানো হয়। আদালত পরিচালনায় সহযোগিতা করেন পুলিশ ও আনসার সদস্যরা।

অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট তারিকুল আলম বলেন, করোনার সংক্রমণ রোধ করতে জেলা প্রশাসন তৎপর রয়েছে। সমাজে আইন অমান্য করার প্রবণতা রয়েছে। লকডাউন থাকা সত্ত্বেও মানুষজন নানা অজুহাতে ঘর থেকে বের হচ্ছেন। বেশিরভাগ মানুষই স্বাস্থ্যবিধি মানছেন না।

জেলা প্রশাসক খোরশেদ আলম খান বলেন, নোয়াখালীতেও করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে সাতদিন কঠোর লকডাউন চলছে। জরুরি প্রয়োজন ছাড়া মানুষ যেন বের হতে না পারে সে জন্য মাঠে সেনাবাহিনী, র‍্যাব, পুলিশ ও আনসার সদস্যরা কাজ করছেন।