এসিডদগ্ধ নারী চরিত্র নিয়ে নির্মিত ‘ছপাক’ সিনেমার ট্রেলার প্রকাশ

বার্তাজগৎ২৪ ডেস্ক:

প্রকাশিতঃ ১০ ডিসেম্বর ২০১৯ সময়ঃ দুপুর ১২ঃ৪৫
এসিডদগ্ধ নারী চরিত্র নিয়ে নির্মিত ‘ছপাক’ সিনেমার ট্রেলার প্রকাশ
এসিডদগ্ধ নারী চরিত্র নিয়ে নির্মিত ‘ছপাক’ সিনেমার ট্রেলার প্রকাশ

দিদারুল ইসলাম:

বলিউডের জনপ্রিয় নির্মাতা সঞ্জয় লীলা বানসালি অভিনেত্রী দীপিকা পাড়ুকোনকে নিয়ে নির্মাণ করেছেন ‘রাম লীলা’, ‘বাজিরাও মাস্তানি’ ও ‘পদ্মাবত’ সিনেমা। সঞ্জয় লীলা বানসালি পরিচালিত ‘পদ্মাবত’ সিনেমায় সর্বশেষ অভিনয় করেন দীপিকা। এতে রানি পদ্মাবতীর চরিত্রে অভিনয় করতে দেখা গেছে এই জনপ্রিয় নায়িকাকে। সিনেমাটিকে ঘিরে তৈরি হয়েছিল নানা বিতর্ক। এমনকি হত্যার হুমকি পর্যন্ত দেয়া হয় দীপিকা ও বানসালিকে। তার পরেও কিছুতেই দমবার পাত্র নন তারা একের পর এক সাহসী চরিত্র নিয়ে বারে বারে হাজির হচ্ছেন দর্শকদের সামনে।

দীপিকার পরবর্তী সিনেমা মুক্তি পেতে যাচ্ছে ‘ছপাক’। এই সিনেমায় এসিডদগ্ধ এক নারীর চরিত্রে অভিনয় করছেন তিনি। সিনেমায় তার চরিত্রের নাম মালতি। মেঘনা গুলজার পরিচালিত এ সিনেমা ২০২০ সালের ১০ জানুয়ারিতে মুক্তি পাওয়ার কথা ছিল।

চলতি বছরের মার্চ মাসে দীপিকার ফার্স্ট লুক প্রকাশিত হওয়ার পর থেকেই সিনেমাটি নিয়ে সারা পৃথিবীতে বলিউড সিনেমা প্রেমীদের কাছে ব্যাপক আলোচনা শুরু হয়। এমনকি সকলেই অধীর আগ্রহে সিনেমাটি মুক্তির প্রতীক্ষার ক্ষণ গণনা করছে।অবশেষে বলিউডের জনপ্রিয় অভিনেত্রী দীপিকা পাড়ুকোনের সেই বহুল প্রতীক্ষিত 'ছাপাক' সিনেমার ট্রেলার প্রকাশিত হল আজ।

দীপিকার ফার্স্ট লুক প্রকাশিত হলে সেখানে দেখা যায় তার কুঁচকে যাওয়া ত্বক, ভ্রূহীন চেহারা, মুখের সর্বস্ব পোড়া!

দীপিকার এই এসিডদগ্ধ ছবিটি নেট দুনিয়ায় মুহূর্তে ভাইরাল হয়ে পড়ে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ঘুরপাক খেতে থাকে সারা বছরজুড়ে। এবার সেই বহুল প্রতীক্ষার অবসান ঘটিয়ে ১০ ডিসেম্বর মুক্তি পেল ‘ছপাক’ সিনেমার ট্রেলার।

প্রকৃতপক্ষে সিনেমাটিতে দীপিকা পাড়ুকোন ভারতে অ্যাসিড আক্রমণের শিকার লক্ষ্মী আগারওয়ালের চরিত্রে অভিনয় করছেন। লক্ষ্মীর জীবনের দুর্বিষহ ঘটনাবলি, এমনকি তার সংগ্রাম ও সাফল্যের কথা গুলো দীপিকা ফুটিয়ে তুলছেন এই মালতি চরিত্রের মধ্য দিয়ে।  

মার্চ মাসে দীপিকা যখন তার ফার্স্ট লুক প্রকাশ করেন,তখন সকলেই অবাক হয়ে গিয়েছিলেন।দীপিকা নিজেও বলেছেন,তার ক্যারিয়ারের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ ও চ্যালেঞ্জিং সিনেমা ‘ছপাক’।  

এই সিনেমায় অভিনয় প্রসঙ্গে দীপিকা গণমাধ্যমকে বলেন, এর আগে পর্যন্ত আমি মনে করতাম, সঞ্জয়লীলা বানসালির সিনেমায় কাজ করা সবচেয়ে কঠিন ব্যাপার। কিন্তু এখন মনে হচ্ছে, আমার জীবনে সবচেয়ে কঠিন কাজ এই সিনেমায় কাজ করা।

দীপিকা পাড়ুকোন আরো বলেছেন, যখন সিনেমাটির গল্প শুনি, তখন এটি আমার মনকে ভীষণ নাড়া দিয়েছিল। শুধু হিংস্রতা নয় বরং সাহস, আশা ও বিজয়ের গল্প এটি। এই গল্প আমার ওপর এতটাই প্রভাব ফেলেছে যে, ব্যক্তিগত ও সৃজনশীলভাবে আমার কিছু করা দরকার বলে মনে হয়েছে। তাই আমি সিনেমাটির প্রযোজক হওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।

এই ছবিতে দীপিকার সহ-প্রযোজক হিসেবে কাজ করেছেন মেঘনা গুলজার। অপরদিকে মেঘনা গুলজার ছবিটি পরিচালনাও করেছেন। তিনি জানালেন, লক্ষ্মীর চরিত্রে অভিনয় করার জন্য দীপিকাই উপযুক্ত ছিলেন।

প্রসঙ্গত, লক্ষ্মী আগারওয়াল মাত্র ১৫ বছর বয়সে এসিডদগ্ধ হন। ২০০৫ সালে মুম্বাইয়ে রাস্তার পাশে দাঁড়িয়ে থাকা অবস্থায় তাকে এসিড ছুঁড়ে মারে এক ব্যক্তি। জানা গেছে,যে কিনা লক্ষ্মীকে একতরফাভাবে ভালোবাসতো।

বার্তাজগৎ২৪/ এম এ 

আরো পড়ুন

 

৯০০ কিলোমিটার পথ হেঁটে পাড়ি দিয়ে অক্ষয়ের কাছে ভক্ত

 

Share on: