ডিবির জ্যাকেটে যুক্ত হচ্ছে কিউআর কোড

বার্তাজগৎ২৪/এসএস
সিরাজুস সালেকীন সিরাজুস সালেকীন
প্রকাশিত: ২:২৪ পূর্বাহ্ন, ০৮ এপ্রিল ২০২২ | আপডেট: ৪:২৫ অপরাহ্ন, ০৭ এপ্রিল ২০২২

গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশ সেজে ছিনতাই, ডাকাতি, অপহরণের মতো অপরাধমূলক কর্মকাণ্ড কমাতে চলতি মাসে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের জ্যাকেটে পরিবর্তন আসছে। নতুন জ্যাকেটে থাকা কিউআর কোড স্ক্যান করলেই জানা যাবে তিনি আসল ডিবি নাকি নকল ডিবি পুলিশ।

ডিবির সব কর্মকর্তার তথ্য আগে থেকেই জমা থাকবে তাদের নিজস্ব সার্ভারে। মোবাইল অ্যাপ দিয়ে সদস্যের কিউআর কোড স্ক্যান করলেই তাদের পরিচয় চলে আসবে। আর যদি কোনো অপরাধী ডিবির সদস‌্য সেজে আসে তার পোশাকের কোড স্ক্যান করা হলে ‘ইনভ্যালিড কিউআর কোড’ নামে একটি বার্তা দেখা যাবে।

গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশ সূত্র জানায়, ডিবি পুলিশের সদস্যরা সাধারণ পোশাকের ওপর একটি হাতাকাটা জ্যাকেট পরেন। সেটির সামনের দিকে ডানে ইংরেজিতে ‘ডিবি’ লেখা থাকে। বামে থাকে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) লোগো। পেছনে ইংরেজিতে কেবলই ‘ডিবি, ডিএমপি’ লেখা থাকে। সাধারণ ইউনিফর্ম থাকায় প্রতারক ও অপরাধীরা সহজেই এমন ইউনিফর্ম তৈরি করে ভুয়া ডিবি সেজে ছিনতাই, ডাকাতি, অপহরণের মতো বড় বড় অপরাধ করছে। এ বিষয়টিকে গুরুত্ব দিয়েই এ পরিবর্তন আনা হচ্ছে ডিবির পোশাকে।

অত্যাধুনিক প্রযুক্তিসম্পূর্ণ কুইক রেসপন্স কোড সম্বলিত জ্যাকেট প্রস্তুতের কাজ চলছে। মার্চ মাসে এটার কাজ শেষ হওয়ার কথা থাকলেও তা সম্ভব হয়নি। এপ্রিল মাসের শেষের দিকে এ জ্যাকেট তৈরির কাজ শেষ হতে পারে।

এ বিষয়ে ঢাকা মহানগর পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগের প্রধান ডিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার একেএম হাফিজ আক্তার বলেন, ডিবি পুলিশের পোশাক পরিবর্তনের কথা রয়েছে। এটি তৈরির কাজ চলছে। খুব তাড়াতাড়ি এটি পুলিশ সদস্যদের (ডিবি) দেওয়া হবে। নতুন জ্যাকেটের বেশ কিছু গোপন পরিবর্তন আনা হচ্ছে।

বদলে যাওয়া এ জ্যাকেট তৈরিতে ব্যবহার হয়েছে ঋতু সহনীয় কাপড়। শীত ও গরম উভয় ঋতুতে আরাম উপযোগী এ পোশাকে বিশেষ এক ধরনের রঙের ব্যবহার থাকবে। এ রঙের বিচ্ছুরণ জানান দেবে আসল-নকল পুলিশের পার্থক্য কী।

অতিরিক্ত কমিশনার হাফিজ বলেন, নতুন পোশাকে বুকের ওপরই থাকবে কিউআর কোড। এটি স্ক্যান করে আসল-নকল শনাক্ত করা যাবে। ডিবি জ্যাকেটের ডিজাইন ও লোগোতেও থাকবে বেশ কিছু পরিবর্তন। কিউআর কোড ছাড়াও পোশাকে কিছু নিরাপত্তামূলক ব্যবস্থা থাকবে। এতে করে কারো পক্ষে সহজে জালিয়াতি করা সম্ভব হবে না। যদি কেউ ডিবির পোশাক জালিয়াতি করে তাহলে তাকে সহজেই শনাক্ত করা যাবে।

বার্তাজগৎ২৪/এসএস