দেশের ক্রিকেটে কথার ফুলঝুরি

বার্তাজগৎ২৪/ এমএ
দিদারুল ইসলাম: দিদারুল ইসলাম:
প্রকাশিত: ৩:০২ পূর্বাহ্ন, ২১ মে ২০২২ | আপডেট: ৪:০৫ পূর্বাহ্ন, ২৯ জুন ২০২২

বাংলাদেশের ক্রিকেটে ভক্তরা যতটা আবেগি তারচেয়ে বেশি আবেগি ক্রিকেটার কিংবা বিসিবির কর্মকর্তারা। শুধু মাত্র প্রতিভা থাকলে বিখ্যাত হওয়া যায় না। বিখ্যাত হতে গেলে অনেক গুলো গুণের অধিকারী হতে হয় তার মধ্যে অন্যতম হচ্ছে বিনয়। যার কোনটায় এক মাশরাফি ছাড়া ক্রিকেট সংশ্লিষ্ট কোনো কর্মকর্তার মধ্যে এখনো পর্যন্ত দেখা যায়নি।

মিস্টার ডিপেন্ডেবল খ্যাত মুশফিকুর রহিম চট্টগ্রামে একটা শতক করেই অনেক কিছুর জবাব দিয়ে দিয়ে দিলেন কৌশলে। শুধু মাত্র তিনি নয় তার স্ত্রীও কৌশলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে করেছেন বিস্ফোরক মন্তব্য। মুশফিকুর রহিমের অবসর ইস্যুতে তার স্ত্রী সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বোর্ড সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনের উদ্দেশ্যে লিখেছেন, ‘আপনাদের রিপ্লেসমেন্ট আছে তো?’ তা সঙ্গে সঙ্গে আমলে নিয়ে বিসিবি সভাপতিও দিয়ে দিলেন তার সমুচিত জবাব। পাপন বললেন, ‘সাকিব বাদে সবারই রিপ্লেসমেন্ট রয়েছে।’

নিজেদের ঘরে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টেস্ট সিরিজের প্রথম ম্যাচে খেলতে নামার আগে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন বলেছিলেন, তাদের চাওয়া সিনিয়ররা হাসিমুখে বিদায় নিক। তারা সিদ্ধান্ত নিতে বিলম্ব করলে বিসিবিই সিদ্ধান্ত নেবে।

অনেক দিন থেকে অফফর্মের কারণে তুমুল সমালোচনার শিকার হয়েছেন মুশফিকুর রহিম। সেই কারণে বিসিবি প্রেসিডেন্টের ইঙ্গিত মুশফিকের উপরে গিয়েও পড়ে। যদিওবা বেসরকারি টিভি চ্যানেলকে দেয়া সাক্ষাৎকারে বিসিবি প্রেসিডেন্ট দাবি করেন, মুশফিকের কথা তিনি একবারও বলেননি।

পাপন স্বীকার করুক বা না করুক সিনিয়র খেলোয়াড়দের নিয়ে মন্তব্য অবশ্যই মুশফিকুর রহিমের ঘাড়েও পড়ে। তাই চট্টগ্রাম টেস্টে নিজের স্বামীর শতকের পরেই পাপনের দেয়া সেই বক্তব্যের বিপরীতে মুশফিকুর রহিমের স্ত্রী জান্নাতুল কেফায়েত মন্ডি ইনস্টাগ্রামে লিখেছিলেন, ‘আমরা হাসিমুখেই বিদায় নেবো ইনশাআল্লাহ। তবে আপনাদের রিপ্লেমেন্ট আছে তো?? সেদিকেও একটু নজর দিলে বাংলাদেশের ক্রিকেটের উন্নয়ন হতো।’

মুশফিকের স্ত্রীর দেওয়া সেই স্ট্যাটাসের বিপরীতে পাপন জানান, শুধু মুশফিক কেন স্বয়ং তারও বিকল্প রয়েছে বিসিবির। পাপন বলেন, ‘এখন পর্যন্ত যেসকল খেলোয়াড় রয়েছে, তাদের সবার বিকল্প রয়েছে। এমনকি বিসিবি সভাপতি হওয়ার জন্য আমারও বিকল্প হিসেবে অনেক লোক আছে। শুধু সাকিবের রিপ্লেসমেন্ট নেই।’

এ যেন দেশের ক্রিকেটে কথার ফুলঝুরি!
কথা শুনা তা আমলে নেওয়া ছাড়া প্রকৃত খেলায় মনোযোগ দেওয়ার সময় যেন কারোর নেই। অপেশাদার হিসেবে ভক্তরা সমালোচনা করলেও পেশাদার হিসেবে খেলোয়াড় কিংবা বিসিবি কর্মকর্তাদের আরও সচেতন ও সহনশীলতার পরিচয় দেওয়া উচিত। তাহলেই কেবল দেশের ক্রিকেটের পাশাপাশি উন্নত হবে তাদের নিজেদের অবস্থান।

বার্তাজগৎ২৪/ এমএ